5আগামী ১১ জুলাই ২০১৭, মঙ্গলবার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় মূল মিলনায়তনে সন্ধ্যা ৭টায় মঞ্চায়ন হবে নাগরিক নাট্যাঙ্গনের প্রযোজনায় ‘ক্রীতদাসের হাসি’।

কথাশিল্পী শওকত ওসমানের উপন্যাস অবলম্বনে নাটকটির নাট্যরূপ দিয়েছেন মঞ্চ ও টিভি অভিনেত্রী হৃদি হক এবং নির্দেশনা দিয়েছেন নাট্যব্যক্তিত্ব লাকী ইনাম। নাটকটির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রগুলোতে অভিনয় করছেন নাগরিক নাট্যাঙ্গনের একঝাঁক শিল্পী।

‘ক্রীতদাসের হাসি’ নাটকটি ১৯৬২ সালে প্রকাশিত এ উপন্যাসের প্রেক্ষাপট জেনারেল আইয়ুব খানের সামরিক শাসন ও বর্বর স্বৈরশাসন। আইয়ুব খানের অপশাসনের যে গল্পটি খলিফা হারুন অর রশিদের চরিত্রের মাধ্যমে চিত্রায়ণ করা হয়েছে, তা যেন আজও ভাস্বর। সেই নাটকে হাসল না ক্রীতদাস। আইয়ুবি অপশাসনের ইতিহাস উঠে এসেছে নাটকের ভাঁজে ভাঁজে।

নাটক প্রসঙ্গে নির্দেশক লাকী ইনাম বলেন, অসম্ভব মেধাবী সাহিত্যিক ছিলেন শওকত ওসমান। তিনি খলিফা হারুন অর রশিদের গল্পের মধ্য দিয়ে রূপকার্থে তুলে এনেছেন আইয়ুব খানকে। যার শাসন বাংলার মানুষ মেনে নেয়নি। আমরা সেই গল্পটিকেই নাট্যরূপ দিয়েছি।

উল্লেখ্য, ‘ক্রীতদাসের হাসি’ নাটকটি গত ২ জানুয়ারি ২০১৭ পাবলিক লাইব্রেরির শওকত ওসমান মিলনায়তনে শওকত ওসমানের জন্ম শতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রথম মঞ্চায়ন হয়েছিল এবং ২১শে ফেব্র“য়ারি সন্ধ্যায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় এর একটি বিশেষ প্রদর্শনী হয়।