Nirbhiknewsহুথি আনসারুল্লাহ যোদ্ধা সমর্থিত ইয়েমেনের সেনাবাহিনী সৌদি আরবের একটি সামরিক ঘাঁটি লক্ষ্য করে মধ্যম-পাল্লার একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। এই নিয়ে গত এক মাসের মধ্যে সৌদি আরবে এ ধরনের দ্বিতীয় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাল ইয়েমেন।

সৌদি নেতৃত্বাধীন কথিত সামরিক জোট ইয়েমেনের ওপর থেকে অবরোধ প্রত্যাহার না করলে হুথি যোদ্ধারা কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দেয়ার পর এই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হলো।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইয়েমেনের একটি সামরিক সূত্র বৃহস্পতিবার রাতে আরবি টিভি চ্যানেল আল-মাসিরা’কে জানিয়েছে, গতকাল দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্রটি সৌদি আরবের নির্ধারিত লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে। তবে সৌদি আরবের ঠিক কোন ঘাঁটি লক্ষ্য করে এটি নিক্ষেপ করা হয়েছে সূত্রটি তা জানায়নি।

ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় সৌদি সামরিক ঘাঁটির ক্ষয়ক্ষতি বা সৌদি সেনাদের হতাহতের তাৎক্ষণিক কোনো খবর পাওয়া যায়নি। তবে সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় আসির প্রদেশের ‘খামিস মুশাইত’ শহর লক্ষ্য করে ইয়েমেন থেকে নিক্ষিপ্ত একটি ক্ষেপণাস্ত্রকে আকাশে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে।

সৌদি নেতৃত্বাধীন কথিত সামরিক জোটের মুখপাত্র তুর্কি আল-মালিকি’র বরাত দিয়ে ওই এজেন্সি দাবি করেছে, “কোনো ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াই ক্ষেপণাস্ত্রটি ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে।”
ইয়েমেনের জনপ্রিয় হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলনের নেতা আব্দুল মালিক আল-হুথি বৃহস্পতিবার টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক ভাষণে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন।

তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ইয়েমেনের ওপর থেকে অবরোধ প্রত্যাহার করা না হলে রিয়াদের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর আগে গত ৫ নভেম্বর ইয়েমেনের সেনাবাহিনী সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের কিং খালিদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর লক্ষ্য করে স্কাড-শ্রেণির ‘বোরকান-২’ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে। ইয়েমেনের ওপর গত আড়াই বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা সৌদি আগ্রাসনের জবাবে ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়।

সৌদি কর্তৃপক্ষ অবশ্য ওই ক্ষেপণাস্ত্রটিও আকাশেই ধ্বংস করে দেয়ার দাবি করে। ক্ষেপণাস্ত্রটির ধ্বংসাবশেষ বিমানবন্দর চত্বরে পড়লেও তাতে কোনো ক্ষতি হয়নি বলে দাবি করা হয়।