nirbhiknewsবাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেয়ার পথ খুঁজে বের করতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঢাকায় মিয়ানমারের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত মিয়ো মিন্ট থান গতকাল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত্ করতে গেলে তার মাধ্যমে মিয়ানমার সরকারের প্রতি এ আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ বিষয়ে ব্রিফ করেন।

ইহসানুল করিম জানান, নথিভুক্ত নয় এমন বহু রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে বাস করছে জানিয়ে বিদায়ী রাষ্ট্রদূতকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গারা খুবই মানবেতর অবস্থার মধ্যে বসবাস করছে। শরণার্থীরা বাংলাদেশে সামাজিক ও পরিবেশগত চাপ সৃষ্টি করছে। প্রতিবেশী হিসেবে আমরা আলোচনার মাধ্যমে সমস্যাটির সমাধান করতে চাই।

সাক্ষাত্কালে প্রধানমন্ত্রী প্রতিবেশী হিসেবে মিয়ানমারের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরো বৃদ্ধি করতে উভয় দেশের মধ্যে বিদ্যমান সম্পর্ক জোরদারের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। দুই দেশের যৌথ বাণিজ্য কমিশন ও নৌ-পরিবহন কার্যক্রম সক্রিয় করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা সন্ত্রাসবাদে তার সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির কথা পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, ‘আমাদের ভূমি প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেব না। বাংলাদেশ প্রতিবেশীদের সঙ্গে সম্পর্কের মূল্যায়ন করে। সাম্প্রতিক সময়ে মিয়ানমারের সশস্ত্র বিদ্রোহী গ্রুপগুলোকে বাংলাদেশে ঠাঁই না দিতে আমরা দৃঢ় অবস্থানে রয়েছি।

এ সময় বিদায়ী রাষ্ট্রদূত বলেন, তার সরকার রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে আন্তরিক এবং এক্ষেত্রে কফি আনান কমিশনের কিছু সুপারিশ বাস্তবায়নে একমত। তবে এর কিছু সুপারিশ বাস্তবায়ন করা দুরূহ। অবশ্য মিয়ানমার সরকার সমস্যাটির সমাধানে পৌঁছতে আন্তরিক।