Nirbhiknewsআয়কর মেলা ও বিকেন্দ্রীকরণ আয়কর মেলা শেষে চলছে কর সপ্তাহ-২০১৭। একের পর এক আয়োজনে করদাতাদের কাছ থেকেও বিপুল সাড়া পাচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

যার ফলে করদাতা অর্থাৎ ই-টিআইএনধারীদের সংখ্যা ৩২ লাখ ছাড়িয়ে গেল। যাদের মধ্যে ইতোমধ্যে ১০ লাখ ৫৮ হাজার করদাতা আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছেন। এনবিআর মনে করছে এ বছর রিটার্ন দাখিল ২০ লাখ ছাড়িয়ে যাবে। এনবিআরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা (আয়কর)  এ তথ্য জানিয়েছেন।

এনবিআর জানায়, গত ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত ৩২ লাখ ২১ হাজার ৮১৯ জন করদাতা ইলেকট্রনিক কর শনাক্তকরণ নম্বর (ই-টিআইএন) রেজিস্ট্রেশন করেছেন। যেখানে ২০১৬ সালের ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ছিল ২৪ লাখ ৪১ হাজার ৬৫৩ জন। অর্থাৎ করদাতা বেড়েছে ৭ লাখ ৮০ হাজার ১৬৬ জন। প্রবৃদ্ধি ৩১.৯৫ শতাংশ।

অন্যদিকে ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত আয়কর রিটার্ন জমা দিয়েছেন ১০ লাখ ৫৮ হাজার ৯৭৩ জন করাদাতা। যেখানে ২০১৬ সালে ঠিক একই সময়ে রিটার্ন দাখিল করেছেন ৬ লাখ ৬৩ হাজার ৯৮৩ জন করদাতা। অর্থাৎ রিটার্ন দাখিল বেড়েছে ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৯৯০। করদাতাদের রিটার্ন দাখিল বেড়েছে ৫৯.৪৯ শতাংশ।

এ বিষয়ে এনবিআরের সদস্য কালিপদ হালদার (কর ও সেবা ব্যবস্থাপনা) বলেন, ‘অব্যাহতভাবে করদাতা বৃদ্ধি পাওয়ায় আমরা আনন্দিত। করদাতাদের প্রতি কৃতজ্ঞ এনবিআরের প্রতি এমন আস্থা দেখানোর জন্য। আশা করছি শিগগিরই করদাতার সংখ্যা ৩৫ লাখে উত্তীর্ণ হবে।’

তিনি বলেন, ‘নতুন নতুন করদাতারা স্বপ্রণোদিত হয়েই রেজিস্ট্রেশন করছেন। রিটার্ন দাখিল করছেন। আমাদের প্রতিজ্ঞা থাকবে কোনো করদাতাই যেন হয়রানির শিকার না হন। এনবিআরকে সেবা প্রদানের মাধ্যমে করদাতাদের সেই আস্থার প্রতিদান দিতে হবে।’

গত ২০১৬-১৭ করবর্ষের ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ১১ লাখ ৪৪ হাজার ৪৯৭ জন করদাতা আয়কর রিটার্ন জমা দিয়েছিলেন, যা ২০১৫-১৬ অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪০ দশমিক ৩৪ শতাংশ বেশি। ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের কাছ থেকে মোট আদায় হয়েছে ৩ হাজার ৩৩৫ কোটি ২১ লাখ টাকা। আদায়ের পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় ২০৭ শতাংশ। আর ওই একই সময়ে টিআইএনধারীর সংখ্যা ২৪ লাখ ৪১ হাজার ৬৫৩ জনে দাঁড়িয়েছিল।