image-13064বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ফিলিপাইনে মামলা থাকার কারণে তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

আজ শনিবার সিলেট সিটি করপোরেশন আয়োজিত সিলেট নগরের বর্জ্য ব্যবস্থাপানা নিয়ে একটি সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ হলো না কেন, এমন প্রশ্নের পরিপ্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘হ্যাঁ এটা করতে পারি নাই। ফিলিপাইনে একটা কেস আছে। কেস থাকায় রিজার্ভ চুরির ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা যাচ্ছে না।’

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ওই বছরের ১৫ মার্চ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির হিসাব ও বাজেট শাখার যুগ্ম পরিচালক জুবায়ের বিন হুদা বাদী হয়ে মতিঝিল থানায় একটি মামলা করেন। মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ এবং তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করা হয়। সাইবার জালিয়াতির মাধ্যমে চুরি যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশনের (আরসিবিসি) মাধ্যমে চলে যায় দেশটির ক্যাসিনোতে। এই অর্থের দেড় কোটি ডলার ইতিমধ্যে ফেরত এসেছে, বাকি অর্থ উদ্ধারে চেষ্টা চালাচ্ছে বাংলাদেশ।

এ সময় পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে যাঁদের নাম আছে, তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এটিরও তদন্ত চলছে। দুদক (দুর্নীতি দমন কমিশন) বিস্তারিতভাবে খোঁজখবর নিচ্ছে। তারা প্রতিবেদন দিলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এর আগে ‘মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, সিলেট সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। এ জন্য সরকারের পাশাপাশি জনগণকেও আরও সচেতন হতে হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে সেমিনারে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা জামিলুর রেজা চৌধুরীসহ নগর পরিকল্পনাবিদেরা অংশ নেন।