rabindronath_660_fullবর্ণবৈষম্য, ষড়যন্ত্র ও আদালত অবমাননার অপব্যবহরের দায়ে ভারতের প্রধানবিচারপতিসহ ৭ বিচারপতির ৫ বছর কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

সোমবার কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি সিএস করনান এই আদেশ জারি করেন। অভিযুক্ত বিচারপতিরা হলেন- প্রধান বিচারপতি খেহার ও সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি দীপক মিশ্র, জে সেলামেশ্বার, রঞ্জন গগৈ, মাদান বি লুকোর, পিনাকি সি ঘোষ ও করন জোসেফ। এর আগে, ভারতের প্রধান বিচারপতি ও সুপ্রীম কোর্টের ৭ বিচারকের বিরুদ্ধে বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। ২৮ এপ্রিল কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি সিএস করনান এই আদেশ জারি করেন। আদেশে বলা হয়, যতদিন তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার নিষ্পত্তি না হবে ততদিন এই আদেশ বহাল থাকবে।

গত ১৩ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি করনান ১৯৮৯ সালের একটি আইনের অধিনে প্রধান বিচারপতিসহ ৭ বিচারকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার জন্য এক আদেশ জারি করেন।

এর আগে প্রধান বিচারপতি খেহার ও ৬ বিচারক করনারের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ আনেন। ২৮ মার্চ ৭ জন বিচারপতির গঠিত বেঞ্চে করনারকে আদালতে ডেকে পাঠান এবং তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। ৩১ মার্চ আবার শুনানির দিন ধার্য করা হয়।

বিচারপতি করনান ২৭ মার্চ তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রত্যাহারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর বরাবর আবেদন করেন এবং ২০ জন কর্মরত ও অবসরপ্রাপ্ত বিচারকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আনেন। সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতিদের বিরুদ্ধে এই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়ার জন্যই বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

টাইমস অব ইন্ডিয়া