Nirbhiknewsবিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে নন ক্যাডারদের নিয়োগ না দেয়ার রিটের রুল শুনানিতে তিন আইনজীবী ও শিক্ষাবিদকে অ্যামিকাস কিউরি (আইনি সহায়তাকারী) হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহ’র হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয়।

তিন অ্যামিকাস কিউরি হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক এবং আইনজীবী ব্যারিস্টার কামাল উল আলম।

বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি রিট আবেদনটি করেন। রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সালাউদ্দিন দোলন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

তাপস কুমার বিশ্বাস সাংবাদিকদের জানান, ২০০০ সালের রুলস অনুসারে সরকার জাতীয়করণ করা কলেজের শিক্ষকদের আত্তীকরণ করছে। এর বিরুদ্ধে বিসিএস ক্যাডারদের পক্ষে রিট করা হয়। এ রিটের শুনানিতে আদালত তিন জনকে অ্যামিকাস কিউরি হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। আদালতের আদেশ অ্যামিকাস কিউরিদের পৌঁছে দিতে হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আগামী ৫ ডিসেম্বর মামলাটি শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছে আদালত।

রিটের বিষয়ে সালাউদ্দিন দোলন জানান, আইন অনুসরণ ছাড়া বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের নিয়োগ না দিতে ২০১৬ সালে একটি রিট করা হয়। ওই রিটে রুলও জারি করে হাইকোর্ট। এ রুল শুনানিতে মতামতের জন্য হাইকোর্ট তিনজনকে অ্যামিকাস কিউরি হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে।

২০০০ সালে তৈরি করা আত্তীকরণ বিধিমালা অনুসরণ করে জাতীয়করণ করা বেসরকারি কলেজের শিক্ষকদের বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারে আত্তীকরণ করে আসছে সরকার। সরকারের এমন সিদ্ধান্তে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে আন্দোলন করছেন ক্যাডারভুক্ত শিক্ষকরা।