Nirbhikপাকিস্তানের পেশওয়ারে একটি কলেজে তালেবান বন্দুকধারীদের হামলায় অন্তত নয় জন নিহত এবং ৩৫ জন আহত হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে আটজন শিক্ষার্থী ও একজন কর্মী। পুলিশের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, শুক্রবার ভোরের দিকে হামলাকারীরা বোরকার পরে এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইন্সটিটিউটে প্রবেশ করে তাণ্ডব চালায়।

হামলাকারী অন্তত তিনজন ছিলেন বলে জানায় বিবিসি। ক্যাম্পাসের ভেতর অন্তত একটি বিস্ফোরণে আওয়াজ পাওয়া গেছে। সেনা ও পুলিশের যৌথ বাহিনী দুই ঘণ্টার অভিযানে হামলাকারী সবাইকে হত্যা করেছে বলে জানায় দেশটির সেনাবাহিনী।

পাকিস্তান তালেবানের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এই হামলার দায় স্বীকার করা হয়েছে। পেশওয়ার পুলিশ প্রধান তাহির খান বলেন, বোরকার আড়ালে নিজেদের লুকিয়ে বন্দুকধারীরা একটি অটো-রিকশায় করে কলেজের সামনে আসে এবং একজন নিরাপত্তারক্ষীকে গুলি করে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে।

আহত এক শিক্ষার্থী রয়টার্সকে বলেন, সাধারণত কলেজের ছাত্রাবাসে প্রায় চারশ শিক্ষার্থী থাকে। কিন্তু লম্বা ছুটি পড়ায় অনেকেই বাড়িতে চলে গেছে। এখন ১২০জনের মত ছাত্র এখানে আছে।

“আমরা ঘুমাচ্ছিলাম, হঠাৎই গুলির শব্দ শুনতে পাই। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আমি উঠে পড়ি এবং দেখি সবাই দৌড়াচ্ছে আর ‘তালেবান হামলা করেছে’ বলে চিৎকার করছে।”

হায়াতাবাদ মেডিকেল কমপ্লেক্সের চিকিৎসক শেহজাদ আকবর বলেন, “আমাদের এখানে আনা আহতদের মধ্যে ছয় জন মারা গেছে, ১৮ জনের চিকিৎসা চলছে। খাইবার টিচিং হাসপাতালে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে, সেখানে চিকিৎসা চলছে ১৭ জনের।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পেশওয়ারের আর্মি পাবলিক স্কুলে তালেবান বন্দুকধারীদের হামলায় ১৩৪ শিশু শিক্ষার্থী নিহত হয়।