http://nirbhiknews.com/wp-content/uploads/2018/05/Vitamin-C.jpgশরীরকে সুস্থ্য আর সচল রাখতে ভিটামিনের কোনো বিকল্প নেই। শরীরে পর্যাপ্ত বৃদ্ধি আর যথাযথ গঠন ভিটামিন ছাড়া সম্ভব নয়। তাই প্রতিদিনের খাদ্যাভাসে অবশ্যই ভারসাম্যপূর্ণ ভিটামিনের উপস্থিতি রাখতেই হবে। তবে অনেকেই ভিটামিনযুক্ত খাবারের পাশাপাশি নানা ধরনের ভিটামিন ট্যাবলেটও খেয়ে থাকেন। কখনো কখনো তা আবার কোনো চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই। তারা মনে করেন এত হয়তো শরীর আরও সবল হয়ে উঠবে। কিন্তু এই ধারণা একেবারেই ঠিক নয়।

চিকিৎসকের পরামর্শ আর প্রেসক্রিপশন ছাড়া কিছু ভিটামিন ট্যাবলেট খাওয়া এড়িয়ে চলা উচিৎ। যাতে করে নিজের অজান্তে শরীরে কোনো ক্ষতি না হয়। দেখে নিই এমন পাঁচ ধরনের ভিটামিন ট্যাবলেট সম্পর্কে যা হয়ে উঠতে পারে শরীরের জন্য ক্ষতিকর:

ভিটামিন এ:
ভিটামিন এ খুব শক্তিশালী ভিটামিন। এটি স্নায়ুতন্ত্রকে সুস্থ ও গতিশীল রাখে সবসময়। কিন্তু আমেরিকার জাতীয় ক্যানসার ইনস্টিটিউশনের গবেষকরা বলছে, যাদের ধূমপানের অভ্যাস রয়েছে তাঁরা নিয়মিত ভিটামিন ট্যাবলেট খেলে ফুসফুস ক্যানসারের ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়। এছাড়াও অতিরিক্ত পরিমাণে ভিটামিন এ ট্যাবলেট লিভারের ওপর খারাপ প্রভাব ফেলে। তাই ট্যাবলেট না খেয়ে রাঙা আলু, গাজর, ফলমূল খাওয়া অনেক ভালো।

ভিটামিন বি ৬:
ভিটামিন বি ৬ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে শরীরকে চাঙ্গা করে রাখে। কিন্তু এই ভিটামিন মাত্রাতিরিক্ত খেলেই হতে পারে বিপত্তি। যদিকোনো ব্যক্তি দিনে ১০ মিলিগ্রামের বেশি এই ভিটামিন ট্যাবলেট খেলে নার্ভের সমস্যায় ভুগতে পারেন। পাশাপাশি ত্বকের রোগ, বমি বমি ভাব, গ্যাসট্রিক হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে। তাই ট্যাবলেটে ভরসা না করে মাছ, আলু, পেস্তা বাদাম খেলে আরও উপকার পাওয়া যাবে।

ভিটামিন সি:
ভিটামিন এ-র মতো সি-ও শক্তি বৃদ্ধিকারক। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। কিন্তু ভিটামিন সি ট্যাবলেট নিয়মিত খেলে কিডনিতে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে ট্যাবলেট না খেয়ে পেঁপে, কমলালেবু, ব্রকলি, টমেটো খাওয়া উচিৎ, এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে।

ভিটামিন ই:
হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় প্রমাণিত, অতিরিক্ত ভিটামিন ই শরীরে মৃত্যুঝুঁকি এনে দিতে পারে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া এ ধরনের ট্যাবলেট না খাওয়াই ভালো। ভিটামিন ই এর চাহিদা পূরণ করতে আলমন্ড, পালং শাক, কুমড়ো অনেক কার্যকর।

মাল্টি ভিটামিন:
মাল্টিভিটামিন ট্যাবলেট মানেই যে সব ভিটামিন একসঙ্গে পাবো আর তাতে শরীর আরও বেশি সুস্থ ও চাঙ্গা হবে- এই ধারণা আসলে ঠিক নয়। এ ধরনের ট্যাবলেট খেলে হার্টের রোগ এবং ক্যানসারের সম্ভাবনা বেশি হয়। মাল্টিভিটামিন ট্যাবলেট না খেয়ে রুটিন মেনে খাওয়া-দাওয়া করলে অনায়াসেই সব ভিটামিনের চাহিদা পূরণ হয়ে যাবে। তাই আর ট্যাবলেটের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকা নয়।