north-korea-banক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে উত্তর কোরিয়ার ওপর নতুন করে অবরোধ আরোপের বিষয়ে একমত হয়েছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। উত্তর কোরিয়ায় বিনিয়োগ সীমিত করা এবং দেশটির রপ্তানি বাণিজ্যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে আনা একটি প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে পাস হয়েছে। আজ রোববার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

জাতিসংঘের মার্কিন দূত নিকি হ্যালে বলেছেন, এটা ‘এক প্রজন্মে যেকোনো দেশের জন্য সবচেয়ে কঠোর অবরোধ’।

গত জুলাইয়ে পিয়ংইয়ং দুটি আন্তমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায়। তারা দাবি করে, ওই ক্ষেপণাস্ত্র যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে সক্ষম। যদিও বিশেষজ্ঞরা এই সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্র ওই পরীক্ষার নিন্দা জানায় এবং ওই পরীক্ষা নতুন করে অবরোধ আরোপে জাতিসংঘকে উসকে দেয়। কয়লা, আকরিক এবং অন্য কিছু কাঁচামাল চীনে রপ্তানি উত্তর কোরিয়ার আয়ের অন্যতম উৎস। আনুমানিক হিসাবে উত্তর কোরিয়া প্রতিবছর প্রায় ৩০০ কোটি ডলার মূল্যের পণ্য রপ্তানি করে থাকে। নতুন অবরোধের কারণে এই বাণিজ্য ১০০ কোটি ডলার কমে যাবে। চলতি বছরের শুরুর দিকে উত্তর কোরিয়ার ওপর চাপ সৃষ্টি করতে দেশটি থেকে কয়লা আমদানি স্থগিত করে চীন।

যদিও উত্তর কোরিয়ার ওপর বারবার আরোপ করা অবরোধ দেশটিকে তার ক্ষেপণাস্ত্রের উন্নয়ন চালিয়ে যাওয়া থেকে বিরত রাখতে পারেনি। চীন উত্তর কোরিয়ার একমাত্র আন্তর্জাতিক মিত্র। পাশাপাশি চীন জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে উত্তর কোরিয়ার ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা প্রস্তাবে একমাত্র ভেটো দেওয়া দেশ। তবে এবার উত্তর কোরিয়ার ওপর অবরোধ আরোপের প্রস্তাবকে সমর্থন করেছে চীন।